দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন আক্রান্ত ১০১, আবার সব ক্লাব ও বার বন্ধ

দক্ষিণ কোরিয়ায় নতুন আক্রান্ত ১০১, আবার সব ক্লাব ও বার বন্ধ

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে লকডাউন শিথিল করার পর নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ১০১ জন। এর বেশির ভাগই বিভিন্ন ক্লাবে যাতায়াতকারী। ফলে সিউলের ইতাইওয়ন এলাকাকে ‘ক্লাস্টার আউটব্রেক’ বা গুচ্ছ সংক্রমণ এলাকা হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। বিভিন্ন মিডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, এমন অবস্থায় সেখানে আবার ক্লাব বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। জাপান টাইমস বলেছে, নতুন সংক্রমণের ফলে রাজধানীর সব ক্লাব ও বার বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইন জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন চোখ কান খোলা রেখে নজরদারির সঙ্গে চলাচল করতে।
অনলাইন বিবিসি বলছে, করোনা সংক্রমণ রোধে বিরাট চ্যালেঞ্জ নেয় দক্ষিণ কোরিয়া। তারা ‘ট্রেস, ট্রেস অ্যান্ড টেস্ট’ পদক্ষেপ নেয়।

এতে যথেষ্ট সফলতা পায় তারা। কিন্তু ১৯ শে এপ্রিল লডডাউন শিথিল করে সবকিছু খুলে দেয়ার ক্ষেত্রে নতুন নির্দেশনা জারি করা হয়। বলা হয়, লোকজনকে ঘরের বাইরে গেলে মুখে মাস্ক পরতে হবে। ব্যবহার করতে হবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। আর যারা ক্লাবে যাবেন তাদেরকে প্রবেশের আগে নিজের নাম ও যোগাযোগ নম্বর লিবিবদ্ধ করতে বলা হয়। কিন্তু নতুন সংক্রমণের প্রেক্ষিতে যেসব ক্লাবের বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে তা পরিচালনা করা হয় সমকামী বা এলজিবিটি সম্প্রদায়ের জন্য এবং এই সম্প্রদায় দ্বারা। কিন্তু ঘরের বাইরে বের হওয়ার ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষ যে নির্দেশনা দিয়েছে তাতে ক্লাবে প্রবেশের আগে অনেকেই নিজের নাম ও ফোন নম্বর মিথ্যা লিবিবদ্ধ করেন। এ জন্য কর্মকর্তারা সবাইকে শনাক্ত করতে পারছেন না। সিউল থেকে ক্যাথলিক পরিচালিত একটি পত্রিকায় প্রথম সংবাদ শিরোনাম করা হয় যে, এই নতুন সংক্রমণ ছড়িয়েছে সমকামীদের নাইটক্লাব থেকে। তবে একটি নির্দিষ্ট গ্রুপ টার্গেট করে এমন মিডিয়া কভারেজের সমালোচনা করেছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। বলা হয়েছে, এতে ওই সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে ঘৃণা বাড়বে। পুলিশের ৮৫০০ সদস্যের একটি টিম এখন প্রায় ১১০০০ মানুষকে শনাক্ত করতে মাঠে নেমেছে। এসব মানুষ সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ইটাইওয়নে বাইরে বেরিয়েছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman