দ. কোরিয়ায় নতুন ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত

দ. কোরিয়ায় নতুন ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত

দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাজ্যে শনাক্ত হওয়া নতুন ধরনের কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত প্রথম রোগী শনাক্ত হয়েছে।

কোরিয়া রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা সোমবার বলেছে, ২২ ডিসেম্বর দক্ষিণ কোরিয়ায় আগত একটি পরিবারের তিন সদস্যের মধ্যে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করা হয়েছে।

নতুন ধরনের ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে ২৩ ডিসেম্বর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্রিটেন থেকে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। এই নিষেধাজ্ঞা শুরুর একদিন আগেই তারা দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রবেশ করে।

নতুন ভাইরাস শনাক্ত হওয়া ওই তিন ব্যক্তি দক্ষিণ কোরিয়ায় কোয়ারেন্টাইনে আছেন।

সোমবার কোরিয়ায় নতুন করে ৮০৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৭ হাজার ৬৮০ জনে। দেশটিতে মোট মারা গেছেন ৮১৯ জন। টানা দ্বিতীয় দিনের মতো দক্ষিণ কোরিয়ায় একদিনে শনাক্ত রোগী এক হাজারের নিচে নেমে এসেছে।

বড় দিনে দেশটিতে ১২৪১ জনের শরীরে করোনা শানাক্ত হয়। যা মহামারি শুরুর পর থেকে একদিনে সর্বোচ্চ। এছাড়া শনিবার ১১৩২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সোমবার সকাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে আট কোটি সাত লাখ ৫১ হাজার ১৬৪ জনে।

এছাড়া ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৭ লাখ ৬৪ হাজার ২১৫ জনে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চলতি বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত দেশটিতে এক কোটি ৯১ লাখ ২৯ হাজার ৩৬৮ জন করোনায় আক্রান্ত এবং তিন লাখ ৩৩ হাজার ১১০ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত রয়েছে করোনায় আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় এবং মৃত্যু নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে। ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল আক্রান্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকলেও সর্বাধিক মৃতের সংখ্যায় রয়েছে দ্বিতীয়তে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতে মোট আক্রান্ত এক কোটি এক লাখ ৮৭ হাজারের বেশি এবং মারা গেছেন এক লাখ ৪৭ হাজার ৬২২ জন। ব্রাজিলে মোট শনাক্ত রোগী ৭৪ লাখ ৮৪ হাজার ২৮৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৯১ হাজার ১৩৯ জনের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman