ভাঙ্গায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চালকসহ নিহত ৩

ভাঙ্গায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চালকসহ নিহত ৩

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চালকসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। এতে কমপক্ষে ২০ জন গুরুত্বর আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে ফরিদপুর-বরিশাল মহাসড়কের পুর্বসদরদী নামক বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় জনতা ও থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করে।

নিহতরা হলেন- চন্দ্রা গাড়ির চালক সিরাজুল ইসলাম (৫৫)। তিনি মাদারিপুর জেলা সদরের মৃত আমির হোসেনের ছেলে। নিহত অন্য দুই জনের পরিচয় জানা যায়নি।

দুর্ঘটনায় গুরুত্বর আহতরা হলেন- ঢাকার কেরানীগঞ্জের খোকন(৩৫), মাদারিপুর জেলার রেবা বেগম(৪৫), শাহআলম মৃধা(৫০), ছাত্তার মৃধা(৬৫), আব্দুর রাজ্জাক(৩০), সনিয়া আক্তার (১৮), শাহজাহান (৩৮), ফরিদপুর জেলার জুলহাস ব্যাপারী (৬০), ধিরন্দ্র বায় (৩৫), চুয়াডাঙ্গা জেলার মমিন শেখ (৪০), বরিশাল জেলার রুহুল আমিন (৫০) ছাড়াও গুরুত্বর আহত অনেকেরই পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আরো পড়ুন: খুলনায় শীতের পোশাকের ৩৫ দোকান পুড়ে ছাই

স্থানীয় জনতা ও থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ৬ জনকে গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে ভাঙ্গা হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার।

হাই-ওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান বলেন, ঢাকা থেকে মাদারীপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা চন্দ্রা পরিবহন দুর্ঘটনাস্থলে আসলে বিপরীতদিক থেকে পান ভর্তি একটি ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ২ জন নিহত হয়েছেন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর একজন নিহত হন।

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় বাস-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে চালকসহ ৩ জন নিহত হয়েছেন। এতে কমপক্ষে ২০ জন গুরুত্বর আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল আটটার দিকে ফরিদপুর-বরিশাল মহাসড়কের পুর্বসদরদী নামক বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় জনতা ও থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করে।

নিহতরা হলেন- চন্দ্রা গাড়ির চালক সিরাজুল ইসলাম (৫৫)। তিনি মাদারিপুর জেলা সদরের মৃত আমির হোসেনের ছেলে। নিহত অন্য দুই জনের পরিচয় জানা যায়নি।

দুর্ঘটনায় গুরুত্বর আহতরা হলেন- ঢাকার কেরানীগঞ্জের খোকন(৩৫), মাদারিপুর জেলার রেবা বেগম(৪৫), শাহআলম মৃধা(৫০), ছাত্তার মৃধা(৬৫), আব্দুর রাজ্জাক(৩০), সনিয়া আক্তার (১৮), শাহজাহান (৩৮), ফরিদপুর জেলার জুলহাস ব্যাপারী (৬০), ধিরন্দ্র বায় (৩৫), চুয়াডাঙ্গা জেলার মমিন শেখ (৪০), বরিশাল জেলার রুহুল আমিন (৫০) ছাড়াও গুরুত্বর আহত অনেকেরই পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আরো পড়ুন: খুলনায় শীতের পোশাকের ৩৫ দোকান পুড়ে ছাই

স্থানীয় জনতা ও থানা পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ৬ জনকে গুরুতর অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে ভাঙ্গা হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার।

হাই-ওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান বলেন, ঢাকা থেকে মাদারীপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা চন্দ্রা পরিবহন দুর্ঘটনাস্থলে আসলে বিপরীতদিক থেকে পান ভর্তি একটি ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ২ জন নিহত হয়েছেন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পর একজন নিহত হন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman