ভারতকে নিষেধাজ্ঞায় আনার সুপারিশ মার্কিন কমিশনের

ভারতকে নিষেধাজ্ঞায় আনার সুপারিশ মার্কিন কমিশনের

ধর্মীয় স্বাধীনতার দিক দিয়ে ভারতকে বিশেষ উদ্বেগজনক দেশের তালিকায় রাখা উচিত বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক কমিশন (ইউএসসিআইআরএফ)। মঙ্গলবার এই কমিশনের প্রকাশ করা বার্ষিক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। এই তালিকাভুক্ত দেশগুলোর রেকর্ড উন্নত না হলে তাদের মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের এই কমিশনটি সুপারিশ করতে পারলেও নীতি নির্ধারণ করতে পারে না। সংবাদসূত্র : রয়টার্স, এনডিটিভি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় স্বাধীনতার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবছর প্রতিবেদন প্রকাশ করে ইউএসসিআইআরএফ। এবারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘২০১৯ সালে ভারতে ধর্মীয় স্বাধীনতার পরিস্থিতির নাটকীয় অবনতি হয়েছে। ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর নিপীড়ন ক্রমাগত বেড়েছে।’ বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন প্রণয়ন-পরবর্তী ঘটনাপ্রবাহ ভারতের ধর্মীয় স্বাধীনতার অবনতিতে ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করা হয়। জাতিসংঘ ওই আইনকে ‘মৌলিকভাবে বৈষম্যমূলক’ আখ্যা দিয়েছে। তবে গত ফেব্রম্নয়ারিতে ভারত সফরের সময় আইনটিকে সমালোচনা করতে অস্বীকার করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভারত ক্রমবর্ধমানভাবে মার্কিন মিত্র হয়ে উঠছে বলে মনে করেন অনেকেই। ইউএসসিআইআরএফ’র ভাইস চেয়ার নাদাইন মায়েনজা বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক বিবেচনা করে নয় বরং স্বাধীনভাবে বিভিন্ন দেশের ধর্মীয় স্বাধীনতার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, নাগরিকত্ব আইন ছাড়াও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের শক্ত হাতে দমন করে ভারত, যা সত্যিই বিপজ্জনক। কমিশনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হিন্দু জাতীয়তাবাদী সরকার গত বছর নির্বাচনে জয় পেয়ে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে সহিংসতা ঘটতে দিয়েছে আর তাদের প্রার্থনাস্থলগুলোর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এছাড়া সরকার সহিংসতায় উসকানি ও ঘৃণাবাদী বক্তব্যের সঙ্গে জড়িত রয়েছে এবং তা ঘটতে দিচ্ছে। গত বছর কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন বাতিল এবং ফেব্রম্নয়ারিতে দিলিস্নতে মুসলমানদের বিরুদ্ধে সহিংসতার সময়ে পুলিশের চোখ বন্ধ করে রাখার অভিযোগের কথা উঠে এসেছে প্রতিবেদনে। এদিকে, মার্কিন কমিশনের এই প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে ভারত সরকার। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব বলেছেন, ‘ভারতের বিরুদ্ধে এই পক্ষপাতমূলক ও উদ্দেশ্যমূলক মন্তব্য নতুন নয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman