রাখিবন্ধনের সম্পর্ক হলে নদীতে পানি কই সীমান্তে হত্যা বন্ধ হচ্ছে না কেন? রিজভী

রাখিবন্ধনের সম্পর্ক হলে নদীতে পানি কই সীমান্তে হত্যা বন্ধ হচ্ছে না কেন? রিজভী

বুধবার ভারতীয় হাই কমিশনারের সামনে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ভারতের সাথে আমাদের সম্পর্ক রাখিবন্ধনে আবদ্ধ। কিন্তু সেই সম্পর্কের পরও নদ-নদীতে পানি নেই কেন? কেন সীমান্তে হত্যা বন্ধ হচ্ছে না? সেই প্রশ্ন রেখেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, যেদিন ওবায়দুল কাদের সাহেব বললেন ভারতের সাথে রাখিবন্ধনের সম্পর্ক সেই দিনই ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে এক বাংলাদেশীকে ভারতীয় বিএসএফ গুলি করে হত্যা করেছে। লালমনিরহাটেও একজন নারীকে গুলি করে হত্যা করেছে বিএসএফ। ওবায়দুল কাদের সাহেব যদি জনগণের ভোটে মন্ত্রী হতেন তাহলে প্রথমে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানাতেন।

বৃহস্পতিবার কুড়িগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা শেষে এক পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, নদ-নদীতে পানি নেই শুকিয়ে যাচ্ছে, তিস্তা নিয়ে কেবল আশ্বাসই শুনাচ্ছেন, অন্যদিকে ফেনী নদীর পানি দিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু এক ফোটা পানিও আনতে পারেননি। সীমান্তে একের পর এক বাংলাদেশী ভাই-বোনকে হত্যা করছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী। কোথায় আপনি এর কড়া প্রতিবাদ করবেন, সীমান্ত হত্যা বন্ধের দাবি জানাবেন, তা না করে আপনি রাখি বন্ধনে আবদ্ধের কথা জানালেন। সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়, বলেই এসব সমস্যা নিয়ে কথা বলতে পারে না, প্রতিবাদ জানাতে পারেনা বলে মন্তব্য করেন রিজভী।

দেশের স্বাধীনতা, গণতন্ত্র রক্ষার লড়াইয়ের জন্য ধানের শীষে ভোট চান বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে গণতন্ত্রকে হত্যা করে, এখান দিনের ভোট রাতে করে। জনগণের ভোটাধিকার হরন করা হয়। আর কথা কথায় উন্নয়নের বাণী শোনায়। অথচ ১ম শ্রেণীর কুড়িগ্রাম পৌরসভা ঘুরে কোথাও উন্নয়নের ছোঁয়া দেখতে পাওয়া যায়না। এটা এখনও পাড়া-গাঁও রয়ে গেছে। তিনি দ্বিতীয় দিনের মতো কুড়িগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম বেবুর ধানেরশীষ প্রতীকের নির্বাচনী প্রচারণায় চালান। এদিন সকাল ১১টায় কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাব থেকে গণসংযোগে শুরু হয়ে শহরের ঘোষপাড়ায় পথসভা করেন। এসময় জেলা বিএনপির সভাপতি তাসভীর উল ইসলাম, সহ সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সোহেল হোসনাইন কায়কোবাদ, আশরাফুল হক রুবেল, আলতাফ হোসেন, মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর বিপ্লব, নাদিম আহমেদ, আমিমুল ইহসান, হাসান যোবায়ের হিমেলসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman