ল্যানসেট: বৃটেন ও চীনের দুটি ভ্যাকসিনই করোনা মোকাবেলায় সক্ষম

ল্যানসেট: বৃটেন ও চীনের দুটি ভ্যাকসিনই করোনা মোকাবেলায় সক্ষম

ল্যানসেট: বৃটেন ও চীনের দুটি ভ্যাকসিনই করোনা মোকাবেলায় সক্ষম করোনার বিরুদ্ধে দুটি ভ্যাকসিন ইতিমধ্যে নিজেদের কার্যকরিতা প্রমাণ করতে পেরেছে। বৃটেন ও চীনের ওই দুই ভ্যাকসিন মানবদেহে করোনার বিরুদ্ধে শক্তিশালী এন্টিবডি তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। একইসঙ্গে ভ্যাকসিন দুটি মানুষের জন্য সম্পুর্ন নিরাপদ। সোমবার ল্যানসেট চিকিৎসা জার্নালের এক প্রতিবেদনে এ খবর ঘোষণা করা হয়েছে।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দাবি অনুযায়ী, অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটিই বিশ্বে করোনার বিরুদ্ধে এখনো নেতৃত্ব দিচ্ছে। এখন পর্যন্ত যে কটি ভ্যাকসিন সবথেকে বেশি এগিয়েছে তারমধ্যেও এগিয়ে আছে অক্সফোর্ড। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ্যাকসিন গবেষণা দলটি তাদের পরীক্ষার প্রাথমিক ধাপের ফলাফল প্রকাশ করে। এতে ১৮ থেকে ৫৫ বছর বয়স্ক সহস্রাধিক মানুষের দেহে ভ্যাকসিন প্রবেশ করানো হয়। পরীক্ষায় অংশ নেয়া ১০৭৭ জনের মধ্যে অর্ধেক ছিলেন পুরুষ।

এরমধ্যে শেতাঙ্গ ৯০.৯ শতাংশ। পরীক্ষায় ইতিবাচক ফল পাওয়া গেছে।
বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এ ভ্যাকসিন দেহে দুইগুন প্রতিরক্ষা তৈরি করছে। এটি শুধু এন্টিবডিই তৈরি করছে না, তৈরি করছে কিলার টি সেলও। এটি সরাসরি করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কোষগুলোকে ধ্বংস করে দেয়। ল্যানসেটের প্রতিবেদনে বলা হয়, চীন ও বৃটেন উভয় দেশের ভ্যাকসিনেই কিলার টি সেল তৈরি হচ্ছে। ২৮ দিনের মধ্যে দেহে কার্যকর প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে উঠছে উভয় ভ্যাকসিনেই। উভয় ভ্যাকসিনেই হালকা কিছু উপসর্গ দেখা গেছে। এরমধ্যে রয়েছে জ্বর, মাথাব্যাথা, অবসাদ ও ইনজেকশনের স্থানে ব্যাথা।
তবে এদিকে চীনের তৈরি ভ্যাকসিন অক্সফোর্ডের থেকেও বেশি ভালো করছে বলে দাবি করা হচ্ছে। এক গবেষণার বরাত দিয়ে সিজিটিএন জানিয়েছে, চীনের ভ্যাকসিন ৫০৮ জনের ওপর পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে আরো ভালো এন্টিবডি তৈরি হয়েছে এবং এটি অধিক নিরাপদ। চীনের এই ভ্যাকসিনটির নাম দেয়া হয়েছে এডি৫-এনকভ। এটি দেশটির সামরিক বাহিনীর অংশ ক্যানসিনো বায়োলজিকস তৈরি করেছে। ল্যানসেট জানিয়েছে, তৃতীয় ধাপের পরীক্ষায় দেখা হবে এই ভ্যাকসিন করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে কীভাবে যুদ্ধ করে। চীন এরইমধ্যে তৃতীয় ধাপের পরীক্ষার জন্য রাশিয়া, ব্রাজিল, চিলি ও সৌদি আরবের সঙ্গে কথা বলেছে। এ নিয়ে আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছে ক্যানসিনোর পরিচালক কিউ ডংশু।
বিশ্বে এখন অন্তত ২১টি ভ্যাকসিন মানবজাতিকে রক্ষায় আশাবাঞ্চক ফলাফল দেখাতে শুরু করেছে। এরমধ্যে সবথেকে এগিয়ে চীন ও বৃটিশ ভ্যাকসিন দুটি। এছাড়া, মডার্না, বায়োএনটেক ও ইনোভিওর ভ্যাকসিনও বেশ আশা জাগাচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019 doinikprovateralo.Com
Desing & Developed BY Md Mahfuzar Rahman